প্রত্যেক প্রবাসী এক একটা মোমবাতি-আহমেদ রিয়াজ

ডিসেম্বর ২৪, ২০১৮, ৯:১১ অপরাহ্ণ 👉 এই সংবাদটি ১৮৮ বার পড়া হয়েছে

Loading...

জুড়ী প্রতিনিধি: মোমবাতির ভিতর সুতা থাকে। সুতায় আগুন দিলে সেই আগুন অন্ধকার দুর করে সকলকে আলোকিত করে আর মোম গলে যায়। ঠিক তেমনি একজন প্রবাসী একটি মোমবাতির মত। নিজে জ্বলে নিঃশেষ হয়ে তাঁর পরিবারকে আলোকিত করেন, দেশের অর্থনীতিকে সমৃদ্ধ করেন। তাঁদের প্রেরিত টাকায় বিদ্যুৎ, পদ্মাসেতুসহ সার্বিক উন্নয়ন। অথচ সেই প্রবাসীরা দেশে আসলে নানা ভোগান্তির শিকার হন। এক সময় তাঁরা খুবই অসহায়ত্বে ভোগেন। তাঁদের কষ্ট কেউ দেখেনা। প্রবাসীরা আপনাদেরই ছেলে, ভাই, ভাতিজা। আমি সেই প্রবাসীদের মর্যাদার আসনে প্রতিষ্ঠিত করতে, তাঁদের কল্যাণে কাজ করতে চাই। এ জন্য আমাকে প্রতিনিধি করে সংসদে পাঠাতে হবে। কথা গুলো বলেছেন মৌলভীবাজার-১ (জুড়ী-বড়লেখা) নির্বাচনী এলাকায় সম্মিলিত জাতীয় জোট মনোনীত প্রার্থি আহমেদ রিয়াজ। রোববার সন্ধ্যা ৭টায় জুড়ী জোনাকী বিপনীর সামনে মোঃ ইয়াছিন আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্টিত এক নির্বাচনী পথ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য কালে তিনি মোমবাতি প্রতীকে ভোট প্রার্থণা করেন।
বিএনপির উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, খালেদা জিয়া জেলে যাবার দিন দেশ উত্তাল হয়ে যাবার কথা ছিল। কিন্তু কিছুই হয়নি। বলেছিলেন শেখ হাসিনার অধীনে নির্বাচনে যাবেন না। এখন ঐক্যফ্রন্টের উপর ভর করে আন্দোলনের অংশ হিসেবে নির্বাচনে এসেছেন। সরকারের দায়িত্ব আন্দোলন দমন করা। তাই লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড বলে চিৎকার না করা ভাল। নির্বাচনে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড আছে বলেই পুরোদমে প্রচার-প্রচারণা চালাচ্ছেন। জামায়াতের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আপনারা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ দিন। তিনি যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করে আপনাদেরকে কলঙ্কমুক্ত করেছেন। এখন আর জ্বালাও পুড়াওয়ের সময় নেই। এখন উন্নয়নের দিকে এগিয়ে যাবার সময়। মহাজোট আগামী দশ বছর ক্ষমতায় থাকবে।
জনতার উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ প্রার্থি শাহাব উদ্দিন জিতলে মন্ত্রী হবেন, হারলেও মন্ত্রী হবেন। অতএব ভোট নষ্ট না করে মোমবাতি প্রতীকে ভোট দিবেন। এক ভোটে এক এমপি ও এক মন্ত্রী পাবেন। বিগত দশ বছরে দেশে চাহিদাতিরিক্ত উন্নয়ন হয়েছে। আগামী দশ বছরে বিশ্বের উন্নত দশটি দেশের তালিকায় বাংলাদেশের নাম থাকবে।
আহমেদ রিয়াজ বলেন, আমি নির্বাচনে নতুন নয়। ২০১৪ সালে জ্বালাও পুড়াওয়ের সময় আমি নির্বাচনে ছিলাম, এখনও আছি। পল্লীবন্ধৃ এরশাদের নেতৃত্বাধীন ৫৮দলের সমন্বয়ে গঠিত সম্মিলিত জাতীয় জোটের প্রতীক মোমবাতি। মোমবাতি শান্তির প্রতীক। মোমবাতি জিতলে বাংলাদেশ জিতবে। আমি নির্বাচিত হলে জুড়ী-বড়লেখায় মাদক-সন্ত্রাস থাকবেনা। যুব-ছাত্র সমাজকে বিদ্যালয় ও খেলার মাঠে ফিরিয়ে নেব। প্রবাসী ভাতা চালু করব। জুড়ী-বড়লেখা উপজেলাকে সিঙ্গাপুরে পরিণত করব। জুড়ী-বড়লেখার মানুষ পল্লীবিদ্যুতের লোডশেডিংয়ে অতীষ্ট হয়ে মোমবাতিকে বেচে নিয়েছেন। মোমবাতির সাথে সকল ধর্মের পবিত্রতার একটা সম্পর্ক আছে। মোমবাতি পাস করলে জুড়ী-বড়লেখায় লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড থাকবে। আপনারা নিরাপদে থাকবেন।

loading...
error: এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা আংশিক নকল করে বা ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি