পদ্মা সেতু দুর্নীতির তথ্য দেয়নি কানাডা পুলিশ

জুন ২৬, ২০১২, ১১:৪৩ অপরাহ্ণ 👉 এই সংবাদটি ৪৫ বার পড়া হয়েছে

Loading...

কাদির কল্লোল

বিবিসি বাংলা, ঢাকা

 

বাংলাদেশের দুর্নীতি দমন কমিশন বলেছে, পদ্মা সেতু নির্মাণ কাজের ক্ষেত্রে দুর্নীতির অভিযোগে বাংলাদেশী কারো বিরুদ্ধে কানাডার পুলিশ কোন তথ্য দিতে পারেনি।

কানাডার পুলিশের একটি দল বাংলাদেশ সফরে এসে দুর্নীতি দমন কমিশন বা দুদকের সাথে বৈঠক করেছে। সেই প্রেক্ষাপটে দুদক এক বিবৃতিতে দিয়ে কানাডার পক্ষ থেকে কোন তথ্য না পাওয়ার কথা জানিয়েছে।

কমিশনের চেয়ারম্যান গোলাম রহমান বিবিসিকে বলেছেন, বিশ্বব্যাংক কয়েকজন বাংলাদেশীর যে নাম দিয়েছে, তার ভিত্তিতে এখন দুদক অনুসন্ধান চালাচ্ছে।

এদিকে কানাডায় সংশ্লিষ্ট কোম্পনির দু’জনকে আটক করে বিচারের মুখোমুখি করা হচ্ছে।

পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজে পরামর্শক নিয়োগের ক্ষেত্রে কানাডার একটি নির্মাণ প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে দুর্নীতি অভিযোগ উঠে।

দীর্ঘ তদন্তের পর কানাডার পুলিশ সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের দু’জন সাবেক কর্মকর্তাক আটক করেছে। আটকদের সেখানে বিচারের মুখোমুখি করা হচ্ছে।

 

এই দুর্নীতির অভিযোগেরব্যাপারে বাংলাদেশেরও কয়েকজনের নাম

বিশ্বদুর্নীতি দমন কমিশনের চেয়ারম্যান গোলাম রহমান বলেছেন, ‘বাংলাদেশের কোন ব্যক্তি কথিত দুর্নীতির সাথে জড়িত ,এমন কোন তথ্য কানাডার তদন্তকারীদের কাছ থেকে এখনও পর্যন্ত পাওয়া যায়নি। এই দুর্নীতির অভিযোগ সম্পর্কে এখনও কোন তথ্য উপাত্ত আমরা পাইনি।’ব্যাংকের পক্ষ থেকে দুর্নীতি দমন কমিশনকে দেওয়া হয়েছে। এমন পটভূমিতে কানাডা পুলিশের একটি দল তাদের তদন্তে পাওয়া তথ্য নিয়ে ঢাকায় সফরে এসে দুর্নীতি দমন কমিশনের সাথে বৈঠক করে।

পদ্মা সেতু নির্মাণে অর্থ সহায়তার

জন্য চুক্তি হয়েছিল বিশ্বব্যাংকের সঙ্গে

দুর্নীতি দমন কমিশন অবশ্য বলছে, দুর্নীতির অভিযোগের ব্যাপারে তাদের অনুসন্ধান কাজ চলছে।

কমিশনের চেয়ারম্যান গোলাম রহমান বলেছেন, কানাডার পুলিশের কাছ থেকে কোন তথ্য পাওয়া না গেলেও বিশ্বব্যাংক বাংলাদেশের কয়েকজনের নামসহ যে তথ্য দিয়েছে তার ভিত্তিতে তারা অনুসন্ধান চালাচ্ছেন।

দুর্নীতির অভিযোগের ব্যাপারে বাংলাদেশের কয়েকজনের নাম যে বিশ্বব্যাংক দিয়েছে, তা প্রকাশ না করলেও দুদক চেয়ারম্যান গোলাম রহমান বলেছেন, এই ব্যক্তিরা গুরুত্বপূর্ণ অবস্থানেই রয়েছেন। তাদেরসহ সংশ্লিষ্টদের জিজ্ঞাসাবাদ করে অনুসন্ধান চালানোর কথাই তিনি উল্লেখ করেন।

পদ্মা সেতু নির্মাণে বিশ্বব্যাংক বাংলাদেশকে ১২০ কোটি ডলার ঋণ দিতে চেয়েছিল। কিন্তু এর নির্মাণ কাজ শুরুর প্রক্রিয়াতেই দুর্নীতির অভিযোগ তুলে বিশ্বব্যাংক অর্থ দেওয়ার বিষয়টি স্থগিত রেখেছে।

দুদক চেয়ারম্যান গোলাম রহমান বলেছেন, অভিযোগ তদন্তের জন্য সেতুর নির্মাণ কাজ বন্ধ রাখা উচিত নয় বলে তারা মনে করেন। সে বিষয়টিও তারা বিবৃতিতে তুলে ধরেছেন।

তিনি আরও জানিয়েছেন, কানাডার পুলিশের কাছ থেকে এখনও কোন তথ্য পাওয়া না গেলেও তাদের সাথে দুদকের যোগাযোগ অব্যাহত রয়েছে। এদিকে কানাডা পুলিশের কোন বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

সূত্র : BBC বাংলা ২৬ জুন ২০১২

loading...
error: এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা আংশিক নকল করে বা ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি