খালেদা জিয়ার ৫ বছরের কারাদণ্ড

ফেব্রুয়ারী ৮, ২০১৮, ৫:৫৯ অপরাহ্ণ 👉 এই সংবাদটি ৯২ বার পড়া হয়েছে

Loading...

অনলাইন ডেস্ক: জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়াকে ৫ বছরের কারাদণ্ড ও একই সঙ্গে দুই কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার টাকা অর্থ দণ্ড দিয়েছেন আদালাত। বৃহস্পতিবার বেলা আড়াইটার দিকে বিশেষ জজ আদালত-৫ এর বিচারক ড. মো. আখতারুজ্জামান এ রায় ঘোষণা করেন। এছাড়াও একই মামলায় দলটির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ অপর চার আসামির ১০ বছর করে কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

দেশের ইতিহাসে এই প্রথম কোনো সাবেক প্রধানমন্ত্রী দুর্নীতির অপরাধে দণ্ডিত হলেন। এর আগে সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ দুর্নীতি মামলায় দণ্ডিত হন। তিনি প্রায় ছয় বছর সাজাও খাটেন।

এর আগে, বৃহস্পতিবার বেলা ২টা ১১ মিনিটে এজলাসে প্রবেশ করে ‘জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলা’র রায় পড়া শুরু করেন বিশেষ জজ আদালত-৫ এর বিচারক ড. মো. আখতারুজ্জামান। শুরুতে তিনি ৬৬২ পৃষ্ঠার রায় বলে জানান। তবে পুরোটা পড়বেন না, বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ অংশগুলো পড়বেন বলেও তিনি জানান।

রায় শুনতে বৃহস্পতিবার বেলা পৌনে ২টার দিকে রাজধানীর বকশীবাজারের আলিয়া মাদরাসা মাঠে স্থাপিত ঢাকার ৫নং বিশেষ জজ ড. আখতারুজ্জামানের আদালতে পৌঁছান বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার গাড়িবহর।

বৃহস্পতিবার বেলা পৌনে ১২টার দিকে গুলশানের বাসভবন থেকে বিশেষ আদালতের পথে রওনা দেন বেগম খালেদা জিয়া। কিন্তু গাড়িবহর মগবাজারে পৌঁছালে বিএনপি নেতাকর্মীরা তা ঘিরে দাঁড়ায়। এ সময় মগবাজারে আটকে যায় বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার গাড়িবহর। পরে সেখানে থেকে বেলা পৌনে ২টার দিকে আদালতে পৌছান তাকে বহনকারী গাড়িবহর।

বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে করা জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায় ঘোষণা করার জন্য আজ দিন ধার্য রয়েছে। রাজধানীর বকশীবাজারের আলিয়া মাদরাসা মাঠে স্থাপিত ঢাকার ৫নং বিশেষ জজ ড. আখতারুজ্জামান এ রায় ঘোষণা করবেন।

গত ২৫ জানুয়ারি রাজধানীর বকশীবাজারের আলিয়া মাদরাসা মাঠে স্থাপিত ঢাকার ৫নং বিশেষ জজ ড. আখতারুজ্জামান রাষ্ট্র ও আসামিপক্ষের যুক্তি উপস্থাপন শেষে রায় ঘোষণার জন্য ৮ ফেব্রুয়ারি দিন ধার্য করেন।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, এ মামলায় সাক্ষ্য দিয়েছেন মোট ৩২ জন। ১২০ কার্যদিবসের বিচারকার্য শেষ হয়েছে ২৩৬ দিনে। আত্মপক্ষ সমর্থনে গেছে ২৮ দিন। যুক্তি উপস্থাপন হয়েছে ১৬ দিন এবং আসামি পক্ষ মামলাটির বিভিন্ন বিষয় নিয়ে উচ্চ আদালতে গিয়েছেন ৩৫ বার।

মামলার এজাহার থেকে জানা গেছে, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টের দুই কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৪৩ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ এনে খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে ২০০৮ সালের ৩ জুলাই রমনা থানায় একটি মামলা করে দুদক।

মামলায় খালেদা জিয়া ছাড়া বাকি আসামিরা হলেন- বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান, মাগুরার সাবেক এমপি কাজী সালিমুল হক কামাল, ব্যবসায়ী শরফুদ্দিন আহমেদ, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সাবেক সচিব কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী এবং বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের ভাগ্নে মমিনুর রহমান।

loading...
error: এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা আংশিক নকল করে বা ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি