দক্ষিণ চীন সাগর ও ভারত মহাসাগরে যুদ্ধজাহাজ পাঠাবে জাপান

জুলাই ৫, ২০১৮, ৯:১৩ পূর্বাহ্ণ 👉 এই সংবাদটি ৮০ বার পড়া হয়েছে

Loading...
আন্তর্জাতিক ডেস্ক: দক্ষিণ চীন সাগর ও ভারত মহাসাগরে হেলিকপ্টারবাহী যুদ্ধজাহাজ পাঠাবে জাপান। বার্ষিক ভ্রমণের মাধ্যমে কৌশলগত সামুদ্রিক অঞ্চলে নিজেদের উপস্থিতি বাড়ানোর অংশ হিসেবেই এই পদক্ষেপ নিচ্ছে দেশটি। আগামী সেপ্টেম্বরে যুদ্ধজাহাজটি তার দুই মাসের ভ্রমণ শুরু করবে বলে দুই জাপানি কর্মকর্তা জানিয়েছেন। খবর বার্তা সংস্থা রয়টার্সের।
খবরে বলা হয়, দক্ষিণ চীন সাগর ও ভারত মহাসাগরে চীনের সামরিক উপস্থিতি নিয়ে জাপান ও যুক্তরাষ্ট্রের উদ্বেগের বহিঃপ্রকাশ হিসেবেই অঞ্চলগুলোতে সামরিক উপস্থিতি বাড়াচ্ছে জাপান। ওই অঞ্চলেই জাপান ও যুক্তরাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ বাণিজ্য পথের অবস্থান। গত বছরও দক্ষিণ চীন সাগর ও ভারত মহাসাগরে একটি যুদ্ধজাহাজ পাঠিয়েছিল দেশটি।
জাহাজ পাঠানোর পরিকল্পনার সঙ্গে সরাসরি জড়িত একজন কর্মকর্তা বলেন, ‘একটি স্বাধীন ও উন্মুক্ত ইন্দো-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের সমর্থনে জাপানে প্রচেষ্টার অংশ হিসেবেই এটা করা হচ্ছে’।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সূত্রটি আরও জানায়, ২৪৮ মিটার দৈর্ঘ্যের ‘কাগা’ নামের যুদ্ধজাহাজটি থেকে বেশ কয়েকটি হেলিকপ্টার একযোগে উড্ডয়ন করতে পারে। জাহাজটি ইন্দোনেশিয়াসহ দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার কয়েকটি দেশে থামবে। ভারত ও শ্রীলঙ্কার বন্দরেও থামবে জাহাজটি।
জাপানি কর্মকর্তারা বলেন, সামরিক জাহাজ কাগা’র সঙ্গে একটি প্রহরী জাহাজও থাকবে। এই অঞ্চলের অন্যান্য দেশের যুদ্ধজাহাজ মিলিয়ে সামরিক মহড়ায়ও অংশ নিতে পারে জাহাজটি।
তবে জাপানের সমুদ্র প্রতিরক্ষা বাহিনীর একজন মুখপাত্র বলেন, তিনি ভবিষ্যৎ কার্যক্রম নিয়ে তিনি কোনও মন্তব্য করতে পারবেন না।
কাগা যুদ্ধ জাহাজটি দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় জাপানিজ ইম্পেরিয়ান নেভির ব্যবহার করা জাহাজের মতোই বড়। সাংবিধানিক বিধি-নিষেধের মধ্যে রাখার জন্য এটাকে প্রতিরক্ষামূলকভাবে তৈরি করা হয়েছে। জাপানের পশ্চিমাঞ্চলের কুরে ঘাঁটিতে গত বছরের মার্চ মাসে জাহাজটির উদ্বোধন করা হয়।
প্রথমবার জাহাজটি সাবমেরিন-বিরোধী অভিযানে অংশ নেয়। এবারের দক্ষিণ চীন সাগর ও ভারত মহাসাগর ভ্রমণের সময় জাহাজটির সহকারী জাহাজ হিসেবে ‘ওসুমি’ সঙ্গে যাবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।
loading...
error: এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা আংশিক নকল করে বা ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি