কুলাউড়ার প্রথম শহীদদের স্মৃতি ফলক পরিস্কারে তরুণদের ব্যতিক্রমী উদ্যোগ

ডিসেম্বর ৭, ২০১৮, ৮:৪৫ অপরাহ্ণ 👉 এই সংবাদটি ৩৭ বার পড়া হয়েছে

মাহফুজ শাকিল: অবহেলায় ও আবর্জনায় পড়ে থাকা স্মৃতি ফলকটি তৈরির প্রায় ১৭ বছর পর কিছু উদ্যোগী তরুণের মাধ্যমে পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন করা হয়েছে। কুলাউড়ার আলোচিত স্বাধীনতা মুক্তিসংগ্রামের ওই দুই জন শহীদের স্মৃতি ফলকটিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করলেন উদ্যোগী ওই তরুণদের সংগঠন কুলাউড়ার সমস্যা ও সম্ভাবনা গ্রুপ। ৬ ডিসেম্বর ছিলো কুলাউড়া মুক্ত দিবস। মহান মুক্তিযুদ্ধে কুলাউড়া উপজেলার রয়েছে এক গৌরবময় ইতিহাস। ১৯৭১ সালের ১৬ই ডিসেম্বর যখন সমগ্র দেশে বিজয় উৎসব ধ্বনিত হয় তার পূর্বে ৬ ডিসেম্বর কুলাউড়া উপজেলা সম্পূর্ণরুপে শত্রু মুক্ত হয়। এরপর থেকে দিনটিকে কুলাউড়াবাসী শত্রু মুক্ত দিবস হিসেবে পালন করে আসছে। এবার একটু ব্যতিক্রমীভাবে বিশেষ এই দিনটিকে স্মরণ রাখতে কুলাউড়ার কাপুয়া ব্রীজ সংলগ্ন স্থানে কুলাউড়ার প্রথম শহীদ জয়চন্ডী ইউনিয়নের মোঃ আকরাম ওরফে আছকির মিয়া ও দ্বিতীয় শহীদ হাবিব উদ্দিনের স্মৃতি ফলকে শ্রদ্ধা জানিয়ে ফেসবুকভিত্তিক সামাজিক সংগঠন কুলাউড়ার সমস্যা ও সম্ভাবনা গ্রুপের সদস্যরা পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করে দিবসটিকে পালন করে।

dav

সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা মাহফুজ হামিদ, সদস্য আব্দুস সামাদ, মুহাম্মদ হোসাইন, সাব্বির আবেদীন বলেন, আমরা দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে কুলাউড়ার বধ্যভূমিগুলো পরিস্কার করার উদ্যোগ হাতে নিয়েছি। পর্যায়ক্রমে কুলাউড়ার অন্যান্য অরক্ষিত বধ্যভূমিগুলো আমরা পরিচ্ছন্ন করবো। অতীতে মনে হয়না এই বধ্যভূমিগুলো কেউ পরিস্কার- পরিচ্ছন্ন করেছে। এই নিহত দুইজন শহীদের স্মৃতিফলক ছাড়াও কুলাউড়া বাকি যে বধ্যভূমিগুলো রয়েছে তা চিহ্নিত করে স্থায়ী ভাবে সংরক্ষণ করার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে জোর দাবি জানাচ্ছি।

উল্লেখ্য, ৭ মে, ১৯৭১ সাল। পাকিস্তানি সৈন্যেরা মৌলভীবাজার থেকে কুলাউড়া প্রবেশ পথে কাপুয়া ব্রীজের কাছাকাছি আসলে তাদের গতিরোধ করতে অকুতোভয় বীর সৈনিক কুলাউড়ার জয়চন্ডী ইউনিয়নের আছকির মিয়া ও হাবিব উদ্দিন একটি গাড়ি নিয়ে তাদের গতিরোধ করতে সামনের দিকে এগিয়ে যান। গাড়ি চালাচ্ছিলেন হাবিব উদ্দিন। তখন আছকির মিয়া পাকিস্তানিদের দেখে প্রথমে তাঁর ডান হাতে থাকা অস্ত্র দিয়ে পাকিস্তানি সৈন্যেদের গাড়িতে গুলি ছুঁড়েন। পাকিস্তানি সৈন্যেরা তাদের গাড়ির উপর রাখা স্বয়ংক্রিয় অস্ত্র এলএমজি দিয়ে পাল্টা গুলি ছুঁড়ে। তাঁরা দুজনে গাড়ি নিয়ে ঘুরিয়ে আসার সময় কাপুয়া ব্রিজের সামনে গাড়িটি তখন উল্টে যায়। ঘটনাস্থলে আছকির মিয়া শহীদ হন। আর হাবিব উদ্দিন ফিরে আসার চেষ্ঠা করলেও গাজিপুরে এসে মৃত্যুবরণ করে শহীদ হন।

loading...
error: এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা আংশিক নকল করে বা ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি